speaker message for the prevention of corona virus infection

  

 করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মাননীয় স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি’র বার্তাঃ

প্রিয় দেশবাসী,

সমগ্র বিশ্ব আজ করোনা ভাইরাস COVID-19 সংক্রমণের ভয়াল গ্রাসে আক্রান্ত। চীনের উহান প্রদেশ থেকে শুরু হওয়া এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছে। ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন, জার্মানী, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, ভারতসহ এসকল দেশ লকডাউনে প্রায় অচল হয়ে পড়েছে। বিশ্বে এ অবধি করোনা ভাইরাস সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ১৪ লক্ষ মানুষ এবং মৃত্যবরণ করেছেন 87292 জন। মার্চ মাসে প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২১ জন। এপ্রিল মাসে সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রবণতা দেখা যাচ্ছে।

বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২৬ মার্চ ২০২০ তারিখ থেকে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। সকলকে বাড়ীতে থাকতে বিশেষ নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩১ দফা নির্দেশনা প্রদান করেছেন। এই ৩১ দফা নির্দেশনা আমাদের সকলকে অবশ্যই পালন করতে হবে।

আমি বাংলাদেশের সকল ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি যারা দিন রাত নিজ জীবনের ঝুকি নিয়ে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন। আমি ধন্যবাদ জানাই সেনা, নৌ, বিমানবাহিনী, পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীর সকল সদস্যবৃন্দকে। সকল গণমাধ্যমকর্মী, ব্যাংক ও অন্যান্য জরুরী সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সকল সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি ধন্যবাদ জানাই সরকারি, বেসরকারি পর্যায়ে যারা এই ক্রান্তি লগ্নে সেবা প্রদান করছেন তাদের সকলকে।

 

প্রিয় দেশবাসী,

আপনারা অত্যন্ত ধৈর্য্যর ও সাহসের সাথে করোনা ভাইরাস জনিত উদ্ভুত কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলা করছেন। আপনাদের সহযোগিতার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকি কমানোর জন্য আপনারা সকলে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন, বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যাচ্ছেন না, সরকারি নির্দেশ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেন সেজন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আপনাদের সহযোগিতা করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

আমরা জানি কাজটি সহজ নয়। দিনের পর দিন একাধারে বাড়িতে থাকা কষ্টকর। বিশেষ করে নিম্ন আয়ের মানুষ, যারা দিনে কর্ম করে চলে, দিনমজুর, শ্রমিক, রিকশাচালকসহ হতদরিদ্র জনগোষ্ঠী। তাদের জন্য অত্যন্ত কষ্টসাধ্য। তারপরও নিজের, নিজের পরিবার ও সকলের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার বিষয় নিশ্চিত করার  জন্য আপনারা এই কষ্ট করছেন।

এই সংকট কালে নিম্ন আয়ের মানুষের দুর্ভোগ কমানোর লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশে হতদরিদ্র দিনমজুর, কৃষক, শ্রমিক, বিধবানারী, হিজড়াসহ নিম্ন আয়ের দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা প্রদানের নির্দেশনা দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাবৃন্দ। ঢাকাসহ সকল জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডভিত্তিক বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। সেই সাথে ১০ টাকা কেজি চাল বিতরণ কার্যক্রম ও টিসিবির মাধ্যমে স্বল্পমূল্যে নিত্য প্রয়োজীয় পণ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হচ্ছে। অনেক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গ নিজ উদ্যোগে হতদরিদ্র মানুষকে সহযোগিতা প্রদান করছেন।

এই সংকটময় সময়ে আমি দেশের সকল বিত্তবান মানুষকে হতদরিদ্র জনগোষ্ঠীর প্রতি তাদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আহবান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশের অর্থনীতি সচল রাখার লক্ষ্যে এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারী ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা প্রদানের বিষয় বিবেচনা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রায় ৭৩ হাজার কোটি টাকার প্রনোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। এই সিদ্ধান্ত অত্যন্ত সুবিবেচনা প্রসূত ও সময় উপযোগী পদক্ষেপ।

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের মাননীয় সংসদ সদস্যবৃন্দ তাদের নিজস্ব নির্বাচনী এলাকায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করেছেন। জাতীয় সংসদের মেডিকেল সেন্টার খোলা রয়েছে। যেকোন সময়ে প্রয়োজনে যোগাযোগ করা যাবে।

 

প্রিয় দেশবাসী,

আসুন আমরা সকলে ধৈর্যের সাথে এই সংকট মোকাবেলা করি। আতঙ্কিত না হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখি, নিয়মিত ঘনঘন সাবান দিয়ে হাত পরিস্কার করি, হাঁচি, কাশির সময় মুখ ঢেকে রাখি, নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করি।

আমাদের সকলের দায়িত্বশীল আচরণ এই সংকট থেকে উত্তরনের পথ সহজ করবে। আমরা অবশ্যই এই সংক্রমন থেকেমুক্ত হবো ইনশাল্লাহ।

আসুন আমরা সকলে সচেতন হই ও করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে সক্রিয় ভূমিকা রাখি। নিজেরা সুরক্ষিত থাকি, পরিবার পরিজন ও প্রতিবেশীদের সুরক্ষিত রাখি। মহান আল্লাহ আমাদের সহায় হোন।

 

                                                                                       ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী
                                                                                              স্পীকার
                                                                                       বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ